সোমবার, এপ্রিল ২২, ২০২৪
Led01রাজনীতি

ধৈর্য ধরুন, সবাই জেনে যাবেন কোন মার্কায় নির্বাচন করছি: সেলিম ওসমান

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমান বলেছেন, আমার ভোট আমি দিবো, যাকে খুশি তাকে দিবো। কিন্তু আমরা মাঝে মাঝে অতি উৎসাহি হয়ে নিরিহ ভোটারদের ভোট দিতে দেই না। আল্লাহ ওস্তে এই কাজ কেউ করবেন না। আপনারা বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোটারদের উৎসাহিত করবেন। দলের কর্মী বাহিনী হতে পারে, কিন্তু আমার কর্মী বাহিনী হচ্ছে এই (সদর-বন্দর) এলাকার মানুষ। আমি কখনো কোন দল-মার্কা দেখি নাই, যে এসেছে তার সাথেই কথা বলেছি। যেখানে সমস্যা সেখানেই উপস্থিত হয়েছি।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) রাতে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় অবস্থিত সেলিম ওসমানের উইশডম কারখানায় আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সবাইকে ধৈর্য দারণ করার আহ্বান জানিয়ে সেলিম ওসমান বলেন, আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারবো এই নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে আমি সেলিম ওসমান ইউনিয়ন-ওয়ার্ড পর্যায়ে যতবার গেছি অন্য কোন সংসদ সদস্য এতবার যাননি। আমাকে কেউ ভালোবাসুক আর না বাসুক, এলাকার মানুষ আমাকে ভালোবাসে। আজ একটি দলের থেকে ৬জন মানুষ মনোনয়ন কিনলেন। দলের প্রধান কি এখন একজনকে মনোনয়ন দিয়ে ৫জনকে হারাবেন। আমার মেয়র মহোদয় বিভিন্ন সভায় বলেছেন, সেলিম ভাই জাতীয় পার্টিতে থাকতে পারেন না; সেলিম ভাইয়ের মার্কাটা নৌকা করে দেয়া হোক। আমি জানি না এখনো কি হচ্ছে, ১৫ই ডিসেম্বর পর্যন্ত আপনাদের ধৈর্য ধারণ করতে হবে; ১৮ ডিসেম্বর থেকে প্রচারণা শুরু হবে।

তিনি বলেন, আমরা কিন্তু এখনো মাঠে নামি নাই। আমি বিশ্বাস করি আপনাদের এই কথা শুনতে হবে না, সেলিম ওসমান চোর-বাটপার। সেলিম ওসমানের স্লোগান ‘হারাম খাবো না, হারাম খেতেও দিবো না’। নির্বাচন করার অধিকার সবার আছে, আমরা কাউকে নির্বাচন করতে মানা করছি না। আপনারা যদি ভোটারদের আকৃষ্ট করে ভোট দেয়ার জন্য আনতে পারেন, তাহলে আপনাদের সেলিম ভাইয়ের জয় নিশ্চিত।

বিএনপির সমালোচনা করে সেলিম ওসমান বলেন, এখন যখন উন্নয়ন চলছে, শুরু হয়েছে আগুন সন্ত্রাস। কাউকে তো আটকে রাখেতে পারছেন না। নির্বাচনের জায়গায় নির্বাচন হবেই এবং সুষ্ঠ নির্বাচন হবে। কিসের অবরোধ, মানুষ এখন শক্ত হয়ে গেছে। কষ্ট করছে আমার দিন মজুর ভাইয়েরা, কষ্ট করছে শিক্ষার্থীরা। মায়েরা সন্তানকে স্কুলে নিয়ে যেতে ভয় পাচ্ছে। বাচ্চাদের স্কুলে পাঠিয়ে আমরা ভয়ে থাকি আসছে না কেন, কিছু হলো নাকি। আগুন দিয়ে বাস জ্বালিয়ে দেওয়া হয়, আগুন দিয়ে মানুষের গাড়ি জ্বালিয়ে দেয়া হয়; এগুলো কি ধরণের কাজ? দেশের নাগরিকদের বিপদে ফেলছেন।

নারায়ণগঞ্জকে আগের রূপে ফিরিয়ে আনার প্রত্যয় ব্যাক্ত করে তিনি বলেন, নিয়ম-নিতি মেনে ভোটের মাধ্যমে আমরা জয়ী হবো ইনশাআল্লাহ। আমি যদি আরেকরা নির্বাচিত হতে পারি তাহলে আমার ছোট বোন মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী, তার সাথে কথা বলে আমরা চেষ্টা করবো নারায়ণগঞ্জকে মেট্রোপলিটন সিটি বানানোর। আমরা জরিপ করে দেখেছি ফুটপাতে যারা বসেন তার ৮০ ভাগ হচ্ছে আমাদের নারায়ণগঞ্জের বাইরের লোক। সুতরাং আমাদের পরিবারের সুবিধার্থে আমাদের কঠোর ভাবে এটাকে দমন করার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। আমরা সবাই মিলে কাজ করে ইনশাআল্লাহ নারায়ণগঞ্জকে আগের মতো প্রাচ্যের ড্যান্ডি রূপে ফিরিয়ে আনবো।

সেলিম ওসমান বলেন, আমাদের ঈমান থাকতে হবে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়েছে, জিয়াউর রহমানকে হত্যা করা হয়েছে। তাদের শয়তান হত্যা করে নাই, মানুষই হত্যা করেছিল। স্বার্থের জন্য তাদের হত্যা করা হয়েছিল। স্বার্থ যদি ত্যাগ করা যেতে পারে তাহলেই আমরা শেখ হাসিনার হাত ধরে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশ পাবো। শেখ হাসিনা যেনো আবারও ক্ষমতায় আসে সেজন্য আমরা তার জন্য দোয়া করবো।

তিনি বলেন, কি কারণে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন দেওয়া হলো না তা নিয়ে নানা প্রশ্ন উঠেছে। অনেকেই আবার বলছে আমি লাঙ্গলে নির্বাচন করবো নাকি নৌকায় করবো। আজ আমি লাঙ্গলে মনোনয়ন পেয়েছি। তবে মঙ্গলবার সবাই জেনে যাবেন আমি কোন মার্কায় নির্বাচন করছি। আমি সবসময় ডিজিটাল নিয়মে চলি। আমি হয়তো একমাত্র ব্যক্তি যে জনগণের মতামত নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছি।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন- বন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজিমউদ্দিন প্রধান, মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি মোদাচ্ছেরুল হক দুলাল, এনসিসি ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর কামরুল হাসান মুন্না, ২৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আফজাল হোসেন, আলীরটেক ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাকির হোসেন, মদনপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গাজী এম এ সালাম, ধামগড় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. কামাল হোসেন, কলাগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেনসহ বন্দরের ৭টি ইউনিয়ন ও এনসিসির বেশ কয়েকটি ওয়ার্ডের জনপ্রতিনিধিবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

RSS
Follow by Email