বুধবার, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২৪
Dis_leadLed01বিশেষ প্রতিবেদনরাজনীতি

প্রধানমন্ত্রীর সাক্ষাতে না.গঞ্জের নেতারা চাইবে ৫টি নৌকা

#নেতৃবৃন্দ নির্বাচন ও নৌকার জন্য প্রস্তুত আছে: ভিপি বাদল
#প্রধানমন্ত্রী আটরশিকে সিট দিলে সেটাই মেনে নিবো:খোকন সাহা
#অবশ্যই উত্থাপন করবো যাতে নৌকাটা দেয়া হয় সোনারগাঁয়ে:সাবেক এমপি কায়সার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জে তিনটি আসনে আওয়ামী লীগের জোর থাকলেও দুটি আসন জাতীয় পার্টির অধিনে। নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের তৃণমূল নেতাকর্মীদের দীর্ঘদিনের আকাঙ্খা জেলার পাঁচটি আসনের নৌকার প্রার্থী দেয়া। এ নিয়ে বিভিন্ন সময় সভা-সমাবেশে আক্ষেপ করতে দেখা গিয়েছে নেতাকর্মীদের। তাছাড়া দলের স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরাও থেমে নেই একই দাবিতে।


এদিকে, আগামী ৩০ জুলাই বদলে ৬আগস্ট জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে তৃণমূলের নেতা ও নৌকার জনপ্রতিনিধিদের ডেকেছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে অনুষ্ঠিত হবে এই বিশেষ বর্ধিত সভা। জাতীয় নির্বাচনের প্রস্ততি, সংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধি ও অভ্যন্তরীণ কোন্দল বন্ধ করতে ও সভায় নেতৃবৃন্দদের বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিবেন শেখ হাসিনা।

তবে সভায় নারায়ণগঞ্জ জেলা, মহানগর ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা দাবী থাকবে নারায়ণগঞ্জে ৫টি আসনে নৌকার মাঝি নিশ্চিত করা। কিন্তু নেত্রীর সিদ্ধান্তই হবে সর্বশেষ সিদ্ধান্ত। অন্যদিকে আসন্ন দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে ইতোমধ্যে নারায়ণগঞ্জ-৫ আসন ও নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনে বিভিন্ন আওয়ামী লীগ নেতাদের নৌকার ব্যানারে পোস্টার দেয়ালে দেয়ালে দেখা মিলেছে। নেত্রীর সিদ্ধাতেই ঝাপিয়ে পড়বে রাজনীতির মাঠে এসব নেতারা।

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাক এড. আবু হাসনাত মো. শহীদ বাদল বলেন, আমরা বরাবরই নারায়ণগঞ্জে পাঁটি আসনে নৌকার প্রতীক ও নৌকার প্রার্থী চেয়ে আসছি। আমরা চাই নারায়ণগঞ্জে ৫টি আসনে আওয়ামী লীগ আরও শক্তিশালী ও সাংগঠনিক ভাবে শক্ত হয়ে উঠুক। ইতোমধ্যে আমাদের নেতৃবৃন্দ নির্বাচনের জন্য ও নৌকার জন্য প্রস্তুত আছে। তবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সিদ্ধান্তই হবে আমাদের সিদ্ধান্ত।

নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. খোকন সাহা বলেন, আগামী ৬ আগস্ট নেত্রীর সাথে আমরা প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে বিশেষ বর্ধিত সভায় একত্রিত হবো। আমাদের কাছে যে নোটিস এসেছে সেখানে কিছু লেখা নেই কি নিয়ে হবে এই সভা। এটা শুধু প্রধানমন্ত্রী নিজেই যানে। তবে আমরা সেখানে যাবো। আমাদের নারায়ণগঞ্জে ৫টি আসনে যদি প্রধানমন্ত্রী আটরশিকেও সিট দেয়, আমরা সেটাই মেনে নিবো। কারণ প্রধানমন্ত্রী শুধু আমাদের না এই দেশেরও একজন অভিভাবক। তাই তিনি যেটা ভালো বুঝেন সেটাই আমরা খুশি থাকবো।

নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল্লাহ আল কায়সার লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, আমরা প্রতিবারই দাবি জানাই আমাদের সোনারগাঁও আসনে নৌকা দেয়ার জন্য। আমরা ইতোমধ্যে কেন্দ্রী নেতৃবৃন্দদের জানিয়েছি আমাদের এই আসনে দুই দুইবার জাতীয় পার্টি ক্ষমতায় এসেছে। আমরা চাই এবার এই আসটিসহ নারায়ণগঞ্জে ৫টি আসনে নৌকার মনোনয়ন দেয়া হোক। আমরা অবশ্যই উত্থাপন করবো যাতে নৌকাটা দেয়া হয় আমাদের সোনারগাঁয়ে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

RSS
Follow by Email