শনিবার, মে ২৫, ২০২৪
Led02রাজনীতি

মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগে পদ পেতে চলছে তোড়জোড়, আলোচনায় কার চেয়ে কে এগিয়ে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটিতে সদস্য সংগ্রহ, রাজনীতিতে সক্রিয় ভূমিকা, তৃণমূল্যের সমর্থন ও তরুণ নেতৃত্বের কারণে এগিয়ে আছেন কায়কোবাদ রুবেল। সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী দুলাল প্রধান মাদকসহ বির্তকিত কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত ও তাহের উদ্দিন সানি দীর্ঘদিন রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত না থাকায় বাদ যেতে পারেন।

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে চলতি সাপ্তাহের যে কোনদিন নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি আসতে পারে কায়কোবাদ রুবেলের নেতৃত্বে। কমিটিতে সভাপতি হতে পারেন সাবেক সভাপতি জুয়েল হোসেন।

বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জানান, মোটামুটি আমাদের প্রাথমিক কাজ শেষ। খুব শীঘ্রই কমিটি ঘোষণা করা হবে। যাদের দিলে আওয়ামী লীগ শক্তিশালী হবে, নির্বাচনে কাজ করতে পারবে, তাদের দিবো। অক্টোবর মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহের মধ্যে হয়ে যাবে।

জানা গেছে, ২০২২ সালের জুলাই থেকে শুরু হয়ে ছিল নারায়ণগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য সংগ্রহের কার্যক্রম। শেষ হয়েছে ২০২৩ সালের জুনের ১৬ তারিখ। পুরোটা সময় জুড়ে স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি সুব্রত পুরকায়স্থ‘র নেতৃত্বে নারায়ণগঞ্জ শহরের ৯টি ওয়ার্ড, সদর থানার আলীরটেক ও গোগনগর ইউনিয়নে কার্যক্রম চালিয়েছে কায়কোবাদ রুবেল। সে কার্যক্রমে কেন্দ্রীয় কমিটির উপ-মহিলা বিষয়ক সম্পাদক উর্মি ঢালী ও কার্যকরী সদস্য টিপু সুলতান ছিলেন। একই সাথে বন্দরের ৯টি ওয়ার্ডে কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ নাসির উদ্দিন, কার্যকারী সদস্য আনিছুর রহমান টিপুর সাথে কাজ করেছেন। কাজ করেছেন সিদ্ধিরগঞ্জের ৯টি ওয়ার্ডে অ্যাড. কাজী শাহানারা ইয়াসমিনের নেতৃত্বেও। পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভী, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই, নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও তৃণমূল্যের সমর্থন রয়েছে কায়কোবাদ রুবেলের প্রতি।
কায়কোবাদ রুবেলের প্রতিদ্ব›দ্বী প্রার্থী দুলাল প্রধানের রয়েছে মাদকের সাথে সম্প্রিক্ত থাকার অভিযোগ। মাদকসহ গ্রেপ্তার হয়েছিল জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কাছে। তাঁর বিরুদ্ধে রয়েছে জমি দখলসহ নানা অভিযোগ। পাশাপাশি অসুস্থ্যতার কারণে দীর্ঘদিন যাবত রাজনীতির বাহিরেও রয়েছেন এ নেতা।

এছাড়া অন্য পদ প্রত্যাশী তাহের উদ্দিন সানি। সে যুবলীগের রাজনীতিতে এক সময় জড়িত থাকলেও এক দশকের বেশি সময় ধরে রাজনীতির বাহিরে রয়েছে। আন্দোলন সংগ্রামেও নেই তেমন কোন ভূমিকা, সমর্থক নেই নিজ এলাকাতেও। সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগের ১৭ নং ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী ছিলেন তিনি কিন্তু তৃণমূলের সমর্থন না থাকায় সেখানেও স্থান পায়নি। কেন্দ্রীয় সভাপতি গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চুর আত্মীয় (বিয়াই) পরিচয়ে এখন নিতে চাইছেন সাধারণ সম্পাদক পদটি ভাগিয়ে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, ২০০৪ সালে নারায়ণগঞ্জে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের যাত্রা শুরু হয়। তার দুই বছর পর নারায়ণগঞ্জে কমিটি দেয় কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগ। আর মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ সর্বশেষ কমিটি পায় ২০১৮ সালে। জেলা কমিটির ১৬ বছর আর মহানগর কমিটির ৫ বছর সময় কালে ২০২২ সালের ৬ জানুয়ারি নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর শাখা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ এবং এর অন্তর্গত সদর থানা, ফতুল্লা থানা, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা, বন্দর থানা, রূপগঞ্জ থানা, সোনারগাঁ থানা কমিটি ও মহানগরের অন্তর্গত ২৭টি ওয়ার্ড কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করে বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ ও সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবু। দীর্ঘ ১৯ মাস পর নারায়ণগঞ্জে চলতি বছরের ৩১ জুলাই কমিটির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

RSS
Follow by Email