রবিবার, মে ১৯, ২০২৪
Led02ফতুল্লা

মাদকাসক্তি চিকিৎসা কেন্দ্রের চেয়ারম্যান ‘মাদক সেবী’, চিকিৎসার আড়ালে মধ্যযুগীয় নির্যাতন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বাতাসে বাসছে উচ্চ শব্দে ইংরেজি গান। গানের আড়ালে চাপা পড়ছে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের শিকার এক যুবকের কান্না। অসহায় সেই যুবক বারবার ক্ষমাও চাচ্ছিলেন। তারপরেও হাত-পা চেপে নির্যাতন করছে বেশ কয়েক জন। পুরো এই নির্যাতনে নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন মো. আক্তারুজ্জামান পাটোয়ারী নামের এক ব্যক্তি।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া নির্যাতনের ওই ভিডিওটি ফতুল্লার পাগলা নয়ামাটি এলাকার ‘চাঁদের আলো’ নামের মাদকাসক্তি চিকিৎসা ও পূর্ণবাসন কেন্দ্রের ভেতরের।

প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান মারধরের নেতৃত্ব দেওয়া আক্তারুজ্জামান পাটোয়ারী। তিনি নিজেও এক সময় মাদক সেবী ছিলেন বলে জানা গেছে। এনিয়ে ব্যাপক সামালোচনা চলছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। অনেকেই এই নির্যাতনের বিচার চাইছেন।

নারায়ণগঞ্জ জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অফিস থেকে ২০২২ সালে অনুমোদন নিয়ে চালু করা হয় ‘চাঁদের আলো’ নামের মাদকাসক্তি চিকিৎসা ও পূর্ণবাসন কেন্দ্রটি। কেন্দ্রের ভেতরে নিরিবিলি পরিবেশ। অনেকেই মাদকাসক্তি থেকে মুক্তির জন্য আসতেন সেখানে। কেন্দ্রটিতে গোপনে মাদক ব্যবসা, রোগীদের শারীরিক নির্যাতন, প্রয়োজনের অতিরিক্ত সময় ভর্তি রেখে অর্থ আদায়ের অভিযোগ রয়েছে স্থানীয়দের।

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়া ভিডিও চিত্রে দেখা যায়, প্রতিষ্ঠানটির ভেতরের একটি রুমে উচ্চ শব্দে ইংরেজি গান চলছে। সেই রুমে ৫ থেকে ৭ জন ব্যক্তির সহযোগীতায় এক যুবককে চেপে ধরে লাঠি দ্বারা মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করছে ‘চাঁদের আলো’র চেয়ারম্যান মো. আক্তারুজ্জামান পাটোয়ারী। উচ্চ শব্দে সেখানে চলছিল ইংরেজি গান। গানের আড়ালে চাপা পড়ছে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের শিকার যুবকটির কান্না।

অনলাইন নিউজ পোর্টাল লাইভ নারায়ণগঞ্জ এর কাছে মারধরের ভিডিওটি এডিটিং বলে দাবি করেছেন অভিযুক্ত মো. আক্তারুজ্জামান পাটোয়ারী। তিনি বলেন, ‘প্রতিষ্ঠানটি চালুর পর থেকে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে চলেছে কিছু লোক। তারই হয়তো আমার ছবি লাগিয়ে ভিডিওটি এডিটিং (অভিযোজনের দ্বারা প্রকাশ) করে ছেড়েছে।’

তবে, ভিডিওটি ৬ মাস পূর্বের দাবি করে আক্তারুজ্জামানের ঘনিষ্টজন ও সাংবাদিক পরিচয় দেওয়া শাহাবুদ্দিন লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জানান, আক্তারুজ্জামান এক সময় নিজেই মাদক সেবী ছিলেন। তিনি নিজেও মাদকাসক্তি চিকিৎসা ও পূর্ণবাসন কেন্দ্রে চিকিৎসা নিয়ে এখন সুস্থ্য জীবন যাপন করছেন। সুস্থ্য হয়ে ফিরে অন্যদের সুস্থ্য করার উদ্দেশ্যে চালু করেছেন চাঁদের আলো।

শাহাবুদ্দিন আরও বলেন, মারধরের শিকার ছেলেটি পালিয়ে গিয়েছিল। তাকে ধরে এনে রাগে-ক্ষোভে ‘চাঁদের আলো’র অন্যান্যরা মারধর করেছে। তখন শাসন করার জন্য আক্তারুজ্জামানও লাঠি-পেটা করেছে।

বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শেখ নূরে আযম লাইভ নারায়ণগঞ্জকে জানান, আমরা ভিডিওটি এখনও দেখিনি। দেখে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

২০২২ সালে অনুমোদন পেয়েছে ‘চাঁদের আলো’ নামের মাদকাসক্তি নিরাময় কেন্দ্রটি। প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির রাজনীতি করতেন এবং তার বিরুদ্ধে মাদকের মামলা ছিলো বলে জানা গেছে।

এমন একজন ব্যক্তিকে কেন মাদকাশক্ত নিরাময় কেন্দ্রের অনুমতি দেওয়া হলো? এ প্রশ্নের উত্তর জানার চেষ্টা করা হয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অফিসের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ মামুনের কাছে। কিন্তু তার ব্যবহৃত মুঠোফোন নাম্বার বন্ধ পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে জানতে নারায়ণগঞ্জ জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অফিসের প্রসিকিউটার সৈকত দত্ত এর মুঠোফোন নাম্বারে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও ফোনটি রিসিভ করেনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

RSS
Follow by Email