শুক্রবার, জুন ১৪, ২০২৪
Led05সদর

সেলিম ওসমানের হাত ধরে ৩০ হাজার মানুষের স্বপ্ন পূরণ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ শহর থেকে সরাসরি গাড়িতে বাড়ি ফিরতে পারবে আলীরটেক ইউনিয়নের বাসিন্দারা। দীর্ঘদিনের দাবীর প্রেক্ষিতে ধলেশ্বরী নদীর ডিক্রিরচর খেয়াঘাটে চালু হয়েছে ফেরী সার্ভিস। এতে অঞ্চলটির দুর্ভোগ লাগবের পাশাপাশি উৎপাদিত কৃষিপণ্য সহজে বাজারজাতকরণের মাধ্যমে অর্থ সামাজিক উন্নয়ন ঘটবে বলে মনে করা হচ্ছে।

নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমান শনিবার (১৪ অক্টোবর) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ডিক্রিরচর খেয়াঘাটে ফেরী সার্ভিসের উদ্বোধন করেছেন। এতে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে ইউনিয়নবাসীর মধ্যে।

 

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ৩০ হাজার মানুষের একটি ইউনিয়ন আলীরটেক। শহরের মাত্র ২ কিলোমিটারের মধ্যে হলেও ইউনিয়নটিতে প্রবেশে বড় বাঁধা ছিল মাঝের ধলেশ্বরী নদী। ফলে গাড়ি দিয়ে যেতে হলে ১৫-১৬ কিলোমিটার ঘুরে প্রবেশ করতে হতো ইউনিয়নটির হাজার হাজার মানুষকে। এ ছাড়া ইজারাদারদের কারণে যাত্রী হয়রানী, জরুরী সেবা দ্রুত না পাশাপাশি আলীরটেকের উৎপাদিত পূণ্য শহরে নিয়ে আসতে ব্যয় বৃদ্ধি বেড়ে যেতো।

ইউনিয়নটি নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের অর্ন্তভূক্ত।

স্থানীয় সংসদ সদস্য একেএম সেলিম ওসমান উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আলীরটেকের সম্ভাবনা বলেন, ‘ফেরী সার্ভিসটি চালু হওয়ায় আগামী ১ বছরের মধ্যে ৩০ হাজার মানুষের এই ইউনিয়নে ৬০ হাজার মানুষ বসবাস করবে। আলীরটেক ইউনিয়ন অনেক উন্নত হবে। কেউ জমি বিক্রি করবেন না।’

সেলিম ওসমানের দীর্ঘদিনের প্রচেষ্টায় নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগ ডিক্রিরচর খেয়াঘাটে ফেরী সার্ভিসের ব্যবস্থা করে দিয়েছেন।

ফেরি সার্ভিস চালু হওয়ায় আলীরটেক ইউনিয়নের মানুষের দুর্ভোগ লাঘবের পাশাপাশি পদ্মা সেতু থেকে আলীরটেক ইউনিয়ন ব্যবহার করে সহজেই নারায়ণগঞ্জ শহর, ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যেতে পারবে বলে মনে করছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সহজ)। সহজের নারায়ণগঞ্জ কার্যালয়ের নির্বাহী প্রকৌশলী শাহানা ফেরদৌস বলেন, ‘প্রতিদিন সকাল ৬টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত দু’টি ফেরি চলাচল করবে ঘাটটিতে। এখন একটি ফেরী রয়েছে। খুব শীঘ্রই আরও একটি যুক্ত করা হবে।’

ফেরীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ঘিরে স্থানীয়দের মাঝে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।

সিঙ্গাপুর আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সালাউদ্দিন রানা জানান, কৃষক কষ্ট করে উৎপাদিত কৃষিপণ্য জমি থেকে গাড়িতে করে ডিক্রিরচর খেয়াঘাট পর্যন্ত আনতেন। এরপর সে গুলো খেয়াঘাট থেকে ট্রলারে করে নদী পাড় করে আবারও গাড়িতে করে শহরের বাজারে নিতেন। এতে ব্যয় বেশি হতো, পাশাপাশি কষ্টও বেশি হতো। এখন ফেরী হওয়াতে জমি থেকেই কৃষিপণ্য সরাসরি বাজারে চলে যাবে। এতে কৃষকরা লাভমান হবে। পাশাপাশি চিকিৎসা ও শিক্ষা ক্ষেত্রে শহরের সকল সুবিধা পাবে এই এলাকার বাসিন্দারা। এতে অর্থ ও সামাজিক উন্নয়ন ঘটবে।

নারায়ণগঞ্জ সদর থানা আওয়ামী লীগ নেতা ফারুক বলেন, স্বাধীনতার পর থেকেই আলীরটেকের মানুষ দূর্ভোগ সহ্য করে আসছে। তাই এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি ছিল ফেরী সার্ভিস চালু করার অবশেষে সেলিম ওসমানের হাত ধরে আলীরটেকের মানুসের ফেরী চালুর স্বপ্ন পূরণ হলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

RSS
Follow by Email