সোমবার, এপ্রিল ২২, ২০২৪
Led03রাজনীতি

‘এটা ভালোবাসার প্রতিফলন’ শোকজ প্রসঙ্গে খোকা

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নির্বাচনি আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকাকে শোকজ করেছিলো নির্বাচন কমিশন।

সোমবার (৪ ডিসেম্বর) সকাল সাড়ে ১১টায় জেলা ও দায়রা জজ আদালতে স্ব-শরীরে উপস্থিত হয়ে সেই শোকজের ব্যাখ্যা দিয়েছেন তিনি। পরে সাংবাদিকদের খোকা বলেন, বাংলাদেশে দীর্ঘ দিনের একটি নির্বাচনী কালচার যে, মনোনয়ন পত্র জমা দেওয়ার দিনে নেতার সমর্থকরা আনন্দ-উল্লাস করবে, মিছিল করবে। তবে এটি বর্তমান নির্বাচনের আলোকে আচরণবিধি লঙ্ঘনের একটি কারণ। এই জন্য আমি দু:খিত। আমাদের সকল উচিত নির্বাচনী আচরণবিধি মেনে চলা। আমিও মেনে চলবো।

তিনি বলেন, যে দিন আমি মনোনয়ন পত্র জমা দিই, সেদিন শুধু আমি ও আমার সাথে ৫ জন উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে যাই এবং আমার সমর্থকরা রাস্তায় ছিলেন, ভিতরে প্রবেশ করেন নি। আমার সমর্থকরা আবেগবশত এটি করেছে। যাতে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন হয়। সেজন্য আমি সোনারগাঁবাসী ও নেতাকর্মীদের পক্ষ থেকে আন্তরিকভাবে দু:খিত।

তিনি আরও বলেন, সোনারগাঁবাসীর প্রত্যাশা হলো সুষ্ঠু নির্বাচন। আমারও কামনা সুষ্ঠু একটি নির্বাচনের পরিবেশ গড়ে উঠুক। রাব্বুল আ‘লামিনের কৃপায় আমি ১০ বছর সোনারগাঁবাসীর সেবা করার সুযোগ পেয়েছি। আমি এই ১০টি বছর আমার লোভ-লালসা ত্যাগ করে, আমার অর্থ-সম্পদ বিক্রি করে সোনারগাঁবাসীর পাশে থাকার চেষ্টা করেছি, অসহায় মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করেছি। বিশেষ করে করোনাকালীন ৩টি মাস আমি সোনারগাঁবাসীর পাশে সর্বক্ষণ ছিলাম। দিনে-রাতে প্রতিটা ঘরে ঘরে সবার পাশে ছিলাম।

জনগণের প্রতি তার প্রত্যাশার ব্যাপারে তিনি বলেন, জনগণ জানে ৫ বছরে কে কেমন সেবা করেছে তাদের। জনগণ তার মতামত জানাবে ভোটের মাধ্যমে। আমি বিশ্বাস করি, জনগণ ভোট দিতে আগ্রহী ও তারা অপেক্ষা করছে। আমি এ্ও আশা রাখি যে, জনগণ আমাকে ভোট দিবে। সোনারগাঁবাসী আমাকে ভালোবাসে। আমাকে যখন জাতীয় পার্টি থেকে নমিনেশন দেওয়া হয়, প্রতিটা ওয়ার্ডে, গ্রামে ওরা(সোনারগাঁবাসী) আনন্দ মিছিল করেছিল, আনন্দ উল্লাস করেছিল। বিভিন্ন মসজিদে আমার জন্য শুকরানা দোয়া করা হয়েছিল। এমনকি আমাকে যে নির্বাচনের আচরণবিধি লঙ্ঘনের জন্য শোকজ করা হয়েছিল তা সোনারগাঁবাসীর ভালোবাসার প্রতিফলন। এটি আমার প্রাপ্তি।

প্রতিদ্বন্দ্বিদের ব্যাপারে খোকা বলেন, যারা আমার প্রতিদ্বন্দ্বি হয়েছেন, তাদের সবার সাথেই আমার ভালো সম্পর্ক। মূলত গোটা সোনারগাঁর মানুষদের আমি আপন ভাবি। যে কেউ পছন্দ অনুযায়ী বিভিন্ন দল করতে পারে, রাজনৈতিক মতাদর্শে ভিন্নতা থাকতে পারে। কিন্তু ব্যক্তিগত ভাবে কেউ আমার শত্রু নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

RSS
Follow by Email