শনিবার, মে ২৫, ২০২৪
জেলাজুড়েরাজনীতিসদর

নারায়ণগঞ্জের গৌরব ওসমান পরিবার: চন্দন শীল

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জ জেলা পরিয়ষদের চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি চন্দন শীল বলেছেন, নারায়ণগঞ্জের গৌরব ওসমান পরিবার। এই পরিবারের কতী সন্তান হলেন সেলিম ওসমান। সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনের মধ্যে ২৯৯ আসনে আওয়ামী লীগের নৌকার মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। শুধুমাত্র নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনে কাউকে মনোনয়ন দেওয়া হয় নাই। সেলিম ভাইয়ের জন্য এই আসন খালি রাখা হয়েছে। এর জন্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে কৃতজ্ঞতা জানাই। ৭ তারিখের যে নির্বাচন হতে যাচ্ছে তা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এবারের নির্বাচন বাংলাদেশের জন্য একটি  চ্যালেঞ্জ।

বৃহস্পতিবার (২৮ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় দেওভোগ পাক্কা রোড এলাকায় নির্বাচনী উঠান বৈঠকে এসব কথা বলেন তিনি।

চন্দনশীল বলেন, এটা বুঝতে কোন পিএইচডি লাগে না যে নেত্রী কি বুঝাতে চেয়েছেন। নেত্রী সম্মান করেছেন ওসমান পরিবারকে। তিনি সম্মান করেছেন খান সাহেব ওসমান আলীকে, সম্মান করেছেন একেএম সামসুজ্জোহাকে, সম্মান করেছেন প্রয়াত নেতা নাসিম ওসমানকে, সম্মান করেছেন বাইতুল আমানকে যেখানে আওয়ামী লীগের জন্ম হয়েছিল।

তিনি বলেন, নারায়ণগঞ্জবাসী আজ উল্লাসিত, উচ্ছাসিত। এই যে যত উঠান বৈঠক হচ্ছে, সেখানে আমরা জনগণের সাড়া পাচ্ছি। যেখানে ২ শ‘ জন আসার কথা সেখানে আসছে ২ হাজার জন। যেখানে ৫ হাজার মানুষ আসার কথা সেখানে এসেছে ৫০ হাজার মানুষ।

তিনি আরও বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় অনেকেই নেতৃত্বে ছিলেন, পরিণত বয়সে ছিলেন। কিন্তু এরা আত্মগোপণে ছিলেন। এদের আদর্শ নিয়ে আমার সন্দেহ আছে। ১৯৭৫ সালে যখন জাতির পিতাকে হত্যা করা হয় তখন প্রয়াত নেতা সামসুজ্জোহা, গোলাম মোর্শেদ ফারুকী গ্রেফতার হন। কিন্তু কয়েক গুণী নেতা আটক হননি। তারা বুক ফুলিয়ে হাটেন, তারা নারায়ণগঞ্জের সভা সমাবেশে অংশ নেন। তাদের আদর্শ নিয়ে আমার প্রশ্ন আছে।

বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. শহিদুল্লাহ’র সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ হোসিয়ারী এসোসিয়েশনের সভাপতি নাজমুল আলম সজলের তত্বাবধানে উপস্থিত ছিলেন- নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড. আবু হাসনাত মো শহীদ বাদল (ভিপি বাদল), মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এড খোকন সাহা, মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি মোদাচ্ছেরুল হক দুলাল, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জি এম আরমান, সাংগঠনিক সম্পাদক এড মাহমুদা মালা, আইন বিষয়ক সম্পাদক এড ওয়াজেদ আলী খোকন, ১২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি নিয়াজুল ইসলাম, মহানগর যুবলীগের সভাপতি শাহাদাত হোসেন ভূইয়ার সাজনু, মো. কবির হোসেন মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সভাপতি জুয়েল হোসেন প্রমুখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

RSS
Follow by Email