রবিবার, মে ২৬, ২০২৪
Led01জেলাজুড়েবিশেষ প্রতিবেদনরাজনীতি

না.গঞ্জ স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি নিয়ে সিদ্ধান্তে বসবে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ

#চলতি মাসের মধ্যেই ইনশাআল্লাহ কমিটি দিতে পারব: কেন্দ্রীয় সভাপতি সাচ্চু
#নেতৃত্বহীন সংগঠন চালানো তুলনামূলকভাবে কষ্টসাধ্য: ছগির আহম্মেদ
#সংগঠনকে একত্রিত করে রাখতে পারবে তাকেই নেতৃত্ব দেয়া উচিত: কায়কোবাদ রুবেল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: ঘোষণা হয় বিলুপ্ত করার জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা-মহানগরসহ সকল স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি। কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়ে প্রায় দেড় বছর অপেক্ষার প্রহর সমাপ্তি করে, ১৬ বছর পর নারায়ণগঞ্জ জেলা ও ৫ বছর পর নারায়ণগঞ্জ মহানগর কমিটির সম্মেলন সম্পন্ন হয়। প্রায় অর্ধ বছর পার হয়ে গেলেও নতুন কমিটি ঘোষণা দেওয়া হয়নি। তবে কেন্দ্রীয় নেতাদের জানান ‘নির্বাচনের কৌশলগত কারণে কমিটি সম্পন্ন হয়নি, তবে নতুন বছরের চলতি মাসেই ঘোষণা দেওয়া হবে জেলার স্বেচ্ছাসেবক লীগের কমিটি গুলো।

এর আগে গত জুলাইয়ের শেষ দিনে অনুষ্ঠিত হয় নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সম্মেলন। পরদিন থেকে শোকের মাস থাকায় নতুন কমিটি ঘোষণা দেয়নি। পরে কয়েক দফায় কমিটি ঘোষণা করার কথা থাকলেও সেটি আর দেয়া হয়নি। তবে, নারায়ণগঞ্জের নেতাদের কর্মীরা অধির আগ্রহে কেন্দ্রীয় নেতাদের দিকে তাকিয়ে আছে। তাদের সিদ্ধান্তকেই প্রাধান্য দিয়ে নতুন কমিটির প্রত্যাশা ব্যাক্ত করেছেন।

নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি প্রার্থী ছগির আহম্মেদ হোসেন লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, সম্মেলনের পর আমাদের নেতা কর্মীরা আশা করেছিল একটি কমিটি হবে, তবে এর মাঝে যেহেতু নির্বাচন চলে এসেছিল আমরা সকলে ছিলাম হয়তো নির্বাচনকালীন সময়ের জন্য একটা কমিটি দেয়া হবে কিন্তু কমিটি তখনও দেয়া হয়নি। কেন্দ্র কমিটির নেতৃবৃন্দ নির্বাচনের ব্যস্ত থাকার কারণে সেই কমিটি আর হয়নি। নেতৃত্বহীন একটি সংগঠন চালানো তুলনামূলকভাবে একটু বেশি কষ্টসাধ্য তবে নারায়ণগঞ্জের স্বেচ্ছাসেবক লীগের সকল নেতা কর্মীর এখনো আশা আছে যে অচিরে খুব শীঘ্রই কমিটি আসবে।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচনকালীন সময়ে সকল প্রকৃতির স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্যরা নৌকা প্রার্থীকে জয় করার কাজ করেছে আমি স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি প্রার্থী হওয়ার স্বার্থে তাদেরকে সবাইকে ধন্যবাদ এবং অভিনন্দন জানাচ্ছি। তবে আমি মনে করছি যদি স্বেচ্ছাসেবক লীগের নতুন কমিটি আসলে কর্মীরা উজ্জীবিত ভাবে আনন্দপূর্ণ পরিবেশে নতুন উদ্যমে কাজ করতে পারবে বলে আমি মনে করি। নেতৃত্ব যে আসুক নতুন কমিটি আসলে ভালো হয়। সভাপতি প্রার্থী হিসেবে আমি দাবিদার কারণ পূর্বে ও আমি ঢাকা কলেজের ছাত্রদের ছাত্রছাত্রীদের নেতৃত্ব দিয়েছি। যেখানে ২২ থেকে ২৫ হাজার ছাত্রছাত্রী ছিল। যদি নেতৃত্বের ক্ষেত্রে তাদের মূল্যায়ন করা হয়, তাহলে আমি আশাবাদী আমি নেতৃত্বে আসবো।

এদিকে, নারায়ণগঞ্জ নারায়ণগঞ্জ মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পদপ্রার্থী কায়কোবাদ রুবেল লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, আমরা সম্মেলন করেছি, সম্মেলন পর একটা কমিটি হলে সংগঠনের নেতৃত্ব সচল হয়। শেখ হাসিনার হাতকে আরও শক্তিশালী করার জন্য যে যে সংগঠনের কমিটি বিলুপ্ত হয়েছে আমি মনে করি সেই সব সংগঠনের কমিটি পূনরায় করা উচিত। নতুন কমিটির ক্ষেত্রে আমরা প্রস্তুত আছি। শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে, যারা দেশের জন্য জনগণের জন্য কাজ করতে। জেলা এবং মহানগরের নতুন কমিটি দিলে আমাদের তৃণমূলের নেতৃবৃন্দ তার একটি নতুন অনুপ্রেরণার সাথে কাজ করতে পারবেন। জেলা কমিটি বিগত ৩ বছর ধরে নেই। সেখানে নতুন নেতৃত্বের জন্য কর্মীরা আগ্রহ পোষণ করছে। যাদেরই নেতৃত্ব দেক, আমরা চাই এমন একজন প্রার্থী চাই যে, সংগঠনকে একত্রিত করে রাখতে পারবেন তাকেই নেতৃত্ব দেয়া উচিত।

অন্যদিকে, বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ বলছেন, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও দলের ত্যাগী নেতাদের নেতৃত্বের মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জ স্বেচ্ছাসেবক লীগ সাজানো হবে। যারা সাংগঠনিক ভাবে দলকে শক্তিশালী করে দেশের উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে।

স্বেচ্ছাসেবক লীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি গাজী মেজবাউল হোসেন সাচ্চু লাইভ নারায়ণগঞ্জকে বলেন, নির্বাচন কালীন সময়ে নারায়ণগঞ্জ স্বেচ্ছাসেবক লীগের কোন কমিটি দেইনি । কারণ এখানে কেউ সভাপতি হলে বাকিরা মন খারাপ করতো। আর এতে নির্বাচনের ওপর প্রভাব পড়তে পারতো। যেহেতু কমিটি দেয়া হয়নি তাই সবাই নির্বাচনে একসাথে মিলে কাজ করছে এবং নৌকা প্রতীককে জয় এনে দিয়েছেন।

তিনি আরও বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কিছুদিন আগে শপথ নিয়েছেন। এখন কিছু আনুষ্ঠানিকতার বাকি আছে, কিছু কাজ বাকি আছে। তবে আগামী তিন চার দিনের মধ্যে আমরা বসে সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলবো। বল যায়, চলতি মাসের মধ্যেই ইনশাআল্লাহ আমরা কমিটি দিতে পারব।

উলেখ্য, গত ১৬ জানুয়ারি ২০২২ সালে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ এবং এর অন্তর্গত থানা ও ওয়ার্ড কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করেছে কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সভাপতি নির্মল রঞ্জন গুহ ও সাধারণ সম্পাদক আফজালুর রহমান বাবুর নির্দেশক্রমে, জেলা ও মহানগর শাখা আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগ এবং এর অন্তর্গত সদর থানা, ফতুল্লা থানা, সিদ্ধিরগঞ্জ থানা, বন্দর থানা, রূপগঞ্জ থানা, সোনারগাঁ থানা কমিটি ও মহানগরের অন্তর্গত ২৭টি ওয়ার্ড কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হলো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

RSS
Follow by Email