শুক্রবার, জুন ২১, ২০২৪
Led01ফতুল্লা

পরনের কাপড় দিয়ে নারীকে বেঁধে রেখে নির্যাতন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: পরনের কাপড়ের উপরের অংশ দিয়ে এক নারীকে বিল্ডিংয়ের বাহিরের পিলারের সাথে বেঁধে রাখার অভিযোগ উঠেছে। ভুক্তভোগী নারীর দাবি, দোকানের বকেয়া ১৭০০ টাকা পরিশোধ না করায় এমন নির্যাতন করেছে দোকানী।

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার দাপা শারজাহান রোলিং মিলস এলাকায় বৃহস্পতিবার এ ঘটনা ঘটে। তবে, গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে খবরটি পৌছায় সোমবার।

ভুক্তভোগী ওই নারী পরিবার নিয়ে শারজাহান রোলিং মিলস এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। সেই মহল্লার আল আকসা মসজিদ গলির দোকানী আনোয়ার হোসেনের কাছ থেকে মাসিক ভাবে বাকি খেতেন তিনি। মাত্র ৪ হাজার ৭‘শ টাকা বকেয়া ছিল অসহায় এ পরিবারটির।

পূজায় ছেলে মেয়ের জামা-কাপড় কিনে দেওয়ার জন্য কম টাকা পরিশোধ করতে পেরেছে বলে জানিয়ে ওই নারী।

তিনি বলেন, দোকানীর কাছে ৩ হাজার টাকা জমা দিয়েছি, ১৭০০ টাকা বকেয়া ছিল। বকেয়া সেই টাকার জন্য বৃহস্পতিবার দুপুর ১২ টার দিকে  দোকানের সামনে দিয়ে যাওয়ার পথে পেছন থেকে আনোয়ার এসে  টেনে হিচড়ে পাশে একটি বিল্ডিংয়ের বাহিরের পিলারের সামনে নিয়ে যায়। স্থানীয়দের বাঁধা উপেক্ষা করে পরনের কাপড়ের উপরের অংশ দিয়ে বেঁধে রাখে।

পরে স্থানীয়দের বাঁধা জোরালো হলে ছেড়ে দেন দোকানী।

ঘটনাটি এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে সন্ধ্যায় ওই এলাকার মুরুব্বীরা এসে সেই নারীকে মসজিদের সামনে ডেকে নিয়ে যায় এবং দোকানদার আনোয়ারকে দিয়ে ক্ষমা প্রার্থনা করিয়ে মিমাংসা করেন।

সেই শালিসে উপস্থিত ছিলেন মসজিদ কমিটির সভাপতি আব্দুস সামাদ, আলমগীর সাহেব, সেই নারীর বাড়ির বাড়ীওয়ালাসহ স্থানীয় মুরুব্বিরা।

আল আকসা জামে মসজিদ সভাপতি আব্দুস সামাদ বিষয়টি স্বীকার করে তিনি জানান, ঘটনাটা যাতে বড় না হয়, সেজন্য তিনিসহ এলাকার মুরুব্বিরা মাগরিব নামাজের পর মসজিদের সামনে বিচার শালিসির মাধ্যমে শেষ করে দিয়েছেন। মহিলাটির পায়ে ধরে মাফ চাইয়ে দিয়েছেন আনোয়ার নামের ঐ দোকানিকে।

তবে, ফতুল্লা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নূরে আজম মিয়া জানান, এবিষয়ে তাকে কেউ অবগত করেনি। তিনি বিষয়টি খোজঁ নিয়ে ব্যবস্থা নিবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

RSS
Follow by Email