শনিবার, মে ২৫, ২০২৪
Led06রাজনীতিসদর

বৃষ্টি উপেক্ষা করে মহানগর বিএনপির সমাবেশে হাজারো নেতাকর্মী

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জে বৃষ্টি উপেক্ষা করেই মহানগর বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশে অংশগ্রহণ করেছে হাজারো নেতাকর্মী। একদফা দাবি বাস্তবায়ন, বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার সু-চিকিৎসা ও মুক্তির দাবিতে ওই সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

নগরীর মিশনপাড়া হোসিয়ারি সমিতির সামনে মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৪টায় আয়োজিত এই সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ।

এর আগে, দুপুর ৩টা থেকেই নারায়ণগঞ্জ মহানগরের বিভিন্ন ওয়ার্ড ইউনিয়ন থেকে বিএনপি ও অঙ্গ-সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা বৃষ্টি উপেক্ষা করে মিছিল নিয়ে সমাবেশ স্থলে আশা শুরু করে। এক পর্যায়ে স্থানটিতে জড়ো হয় হাজারো নেতাকর্মী।

মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক এড. সাখাওয়াত হোসেন খানের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব এড. আবু আল ইউসুফ খান টিপুর সঞ্চালনায় সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির ঢাকা বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক বেনজির আহমেদ টিটু।

প্রধান অথির বক্তব্যে আব্দুস সালাম আজাদ বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলা দিয়ে কারাগারে রাখা হয়েছে গণতন্ত্রকে ধ্বংস করার জন্য। আজ বেগম খালেদা জিয়া মৃত্যুর মুখে। এরপরেও তার মুক্তির জন্য আমাদের কথা বলতে হয়। আমাদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার সময় এসেছে। আজ বিএনপি নেতাকর্মীরা ঐক্যবদ্ধ।

তিনি বলেন, আজ যদি জিয়াউর রহমানের শাসন বেগম খালেদা জিয়ার শাসন থাকত তাহলে এভাবে মায়ের বুক খালি হত না। আমাদের অনেক নেতাকর্মীকে তো খুঁজেও পাওয়া যায়নি। আজ তারেক রহমান দেশের বাইরে থেকে আমাদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তার বিরুদ্ধেও মিথ্যা মামলা দেয়া হয়েছে। তিনি খালাস পেয়েছিলেন তাই সেই বিচারককে দেশ থেকে বিতাড়িত করা হয়েছিল।

তিনি আরও বলেন, আজ দেশ অরাজকতার মুখোমুখি। আমাদের চেয়ারপারসন শপথ নিয়েছিলেন এরশাদের পতন ঘটিয়ে গণতন্ত্র কায়েম করবো কোন আপোষ করবো না। ১৯৯১ সালে এরশাদের পতন ঘটিয়ে বিএনপি সরকার গঠন করেছিল। তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে আমরা চারটি নির্বাচন করেছি। সেই নির্বাচনগুলো গ্রহনযোগ্য ছিল।

সভাপতির বক্তব্যে এড. সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, সরকার জোড় করে আজ ক্ষমতায় বসে আছে। ওই আদালতের ঘারে বন্দুক রেখে বেগম খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়া হয়েছে। আজ বেগম জিয়া যে অসুস্থ হয়েছে, এর কারণ হলো এই সরকার। তাদের এই অপকর্মের বিচার এই বাংলাদেশেই হবে। আজ দেশের ১৮ কোটি মানুষ চায়, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বিদেশে প্রেরণ করা হোক। অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত দেন, নয়তো নারায়ণগঞ্জের সকল নেতাকর্মীদের নিয়ে এই সরকারকে উৎখাত করবো।

মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব এড. আবু আল ইউসুফ খান টিপু বলেন, আপনারা যদি চান যে তারেক রহমান বীরের বেশে আবারো বাংলাদেশে ফিরে আসুক, তাহলে আপনারা প্রস্তুত থাকুন। যতদিন আমাদের একদফা দাবী আদায় না হবে এবং বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ প্রেরণ করা না হবে, ততদিন আমরা রাজপথ ছেড়ে যাবো না।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন- নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক এড. জাকির হোসেন, যুগ্ম আহ্বায়ক এড. সরকার হুমায়ূন কবির, সদর থানা বিএনপির সভাপতি মাসুদ রানা, সাধারণ সম্পাদক এড. এইচএম আনোয়ার প্রধান, মাকিদ মোস্তাকিম শিপলু, বন্দর থানা বিএনপি’র সভাপতি শাহেন শাহ্ আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক রানা, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সদস্য সচিব মমিনুর রহমান বাবু, মহানগর শ্রমিকদলের আহ্বায়ক এস এম আসলাম, সদস্য সচিব ফারুক হোসেন, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি রাকিবুর রহমান সাগর, সাধারণ সম্পাদক রাহিদ ইসতিয়াক শিকদারসহ বিভিন্ন ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন বিএনপির এবং অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

RSS
Follow by Email