সোমবার, এপ্রিল ২২, ২০২৪
Led05রাজনীতিসদর

মহানগর বিএনপির বিক্ষোভ মিছিলে স্লোগানে মু‌খো‌রিত নগরী

লাইভ নারায়ণগঞ্জ: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ প্রেরণের দাবিতে সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিল করেছে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি।

কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে সোমবার (৯ অক্টোবর) বিকেল তিনটায় নগরীর মিশনপাড়া এলাকায় এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়।

এর আগে, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি আওতাধীন বিভিন্ন উপজেলা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, শ্রমিকদল, মহিলাদল, ওলামাদলসহ অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা ব্যানার ফেস্টুনে সু-সজ্জিত খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে সমাবেশে অংশগ্রহণ করেন।

এসময় নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক এড. সাখাওয়াত হোসেন খানের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব এড. আবু আল ইউসুফ খান টিপুর সঞ্চালনায় উপস্থিত ছিলেন- মহানগর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক এড. জাকির হোসেন, মনির হোসেন খান, আনোয়ার হোসেন আনু, ফতেহ রেজা রিপন, সদর থানা বিএনপির সভাপতি মাসুদ রানা, সাধারণ সম্পাদক এড. আনোয়ার প্রধান, সাখাওয়াত ইসলাম রানা, মোস্তাকিম শিপলু, বন্দর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মাজহারুল ইসলাম হিরণ, সাধারণ সম্পাদক হারুন উর রশিদ লিটন, বন্দর থানা বিএনপি’র সভাপতি শাহেন শাহ্ আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক রানা, মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম সজল, সদস্য সচিব সাহেদ আহমেদ, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক শাখাওয়াত ইসলাম রানা, সদস্য সচিব মমিনুর রহমান বাবু মহিলা দলের সভানেত্রী দিলারা মাসুদ ময়নাসহ অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

সমাবেশে এড. সাখাওয়াত হোসেন খান বলেন, আজকের বিক্ষোভের একটাই কারণ, আমাদের দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বিদেশে নিয়ে চিকিৎসা দেয়ার জন্য। তাদের অবশ্যই নিঃশর্ত মুক্তি দিতে হবে। খালেদা জিয়ার চিকিৎসা বোর্ড বলেছে তার আর কোন চিকিৎসা হবে না বাংলাদেশে। তাকে যদি বাঁচিয়ে রাখতে চায় তাহলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে প্রেরণ করতে হবে।

 

তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়া বাংলাদেশের অভিসংবাদিত নেত্রী। ৯০সালে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে আপোষহীন নেত্রী উপাধী পেয়েছেন। আপসহীন নেতৃত্ব দিয়ে বাংলাদেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেছিলো, উনি প্রথম তত্ত্বাবধায়ক সরকার গঠন করেছে। আজকে তার অপরাধ হলো তিনি জনগণের কাছে অত্যন্ত জনপ্রিয়। কুয়েত সরকার জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টে ২ কোটি টাকা দিয়েছিলো, সেই টাকা বর্তমানেও সেখানে আছে। কোন খরচ করা হয়নাই। বরং সেই টাকা এখন ৮ কোটি টাকা হয়েছে। আদালতের মাথায় বন্দুক রেখে এই সাজা দিয়েছে খালেদা জিয়াকে। সেই সাজা এই দেশের মানুষ মানে না, অবিলম্বে এই দেশের মানুষ বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি চায়। আমাদের নেত্রীকে দেশের বাহিরে চিকিৎসার জন্য না নিলে, আমরা ১ দফার দাকি আদায়ের আন্দোলনে এই সরকারের পতন নিশ্চিত করবো। কয়েকদিন আগে বিশ্বের নিকৃষ্ট শাসকদের পর্যালোচনা করা হয়েছে, রেংকিং করেছে। সেখানে আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী ফাস্ট হয়েছে।

এড. আবু আল ইউসুফ খান টিপু বলেন, শেখ হাসিনা যদি বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি না দেয়, সু-চিকিৎসার ব্যবস্থা না করেন আর যদি কোন অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা ঘটে; তাহলে আপনার দলের চামচাদের রাজনৈতিক ভাবে দাফন করা হবে। শেখ হাসিনা ওয়াজেদ, আপনি খালেদা জিয়া ও তার পরিবারকে ভয় পান, তত্বাবধায়ক সরকারকে ভয় পান। কারণ আপনি জাননে তত্বাবধায়ক সরকারের অধিনে নির্বাচন হলে, টুঙ্গিপাড়াতেও যদি নির্বাচন করা হয় তাহলে বেগম খালেদা জিয়ার পারিচালিকার সাথেও জয় লাভ করতে পারবেন না।

পরে, সমাবেশ শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে চাষাড়া চত্বর এসে সমাপ্ত করেন মহানগর বিএনপি ও অঙ্গ সগযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা। বিক্ষোভ মিছিল থেকে চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও বিদেশে উন্নত চিকিৎসা এবং সরকারের পদত্যাগসহ এক দফা দাবির স্লোগানে মুখরিত হয় পুরো এলাকা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

RSS
Follow by Email