শনিবার, মে ২৫, ২০২৪
Led01আড়াইহাজাররাজনীতি

সুমনের বিরুদ্ধে মামলা হলে ফোন দেয় এমপি বাবু, কর্মীরা বলছে ‘সরকারের এজেন্ট’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইভ নারায়ণগঞ্জ: নি‌জে‌কে সরকারের বিরুদ্ধে কট্টর সমালোচক দা‌বি করেন, ত‌বে অ‌নেক মামলারই হয়নি আসামী। যেতে হয়নি জেলে, হতে হয়নি হামলার শিকার। কারণ তিনি সরকার দলের সংসদ সদস্যের সু-নজরে আছেন। তাই এলাকায় বড় বড় ব্যানার-পোস্টার সাটাচ্ছেন, বিভিন্ন সময় নিজেকে ঘোষণা করেছেন প্রার্থী হিসেবেও।

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারের এই নেতার নাম মাহমুদুর রহমান সুমন। সে সম্প্রতি বিএনপির সহ-অর্থনৈতিক বিষয়ক সম্পাদক পদটি বাগিয়ে নিয়েছেন। নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি ছিলেন।

তার ভূমিকা নিয়ে বিএনপির মধ্যেই এখন চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা। তাকে বিএনপিতেই বলা হচ্ছে ‘সরকারের এজেন্ট’।

৬ অক্টোবর রাতে বেসরকারি একটি টেলিভিশন চ্যানেলে ‘টক-শো’তে নেওয়া হয় মাহমুদুর রহমান সুমন ও সরকার দলীয় সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবুকে।

সেখানে সঞ্চালকের প্রশ্নের জবাবে নজরুল ইসলাম বাবু জানান, ‘মাহমুদুর রহমান সুমনকে একটি নাশকতা মামলায় আসামী করেছিল পুলিশ। বিষয়টি প্রতিবাদ করে হজ্বে থাকা অবস্থায় নজরুল ইসলাম বাবুকে জানান সে (সুমন)। পরে এই সংসদ সদস্য পুলিশ সুপারকে ফোন দিয়ে মামলাটি থেকে অব্যাহতি পান মাহমুদুর রহমান সুমন’। তবে, কর্মীরা সেই মামলায় আসামী ছিলো।

এ সময় মাহমুদুর রহমান সুমন নীরব ছিলেন। করেননি কোন প্রতিবাদও।

কতটি মামলা রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে সঞ্চালকের প্রশ্নের জবাবে মাহমুদুর রহমান সুমন কোন উত্তরই দিতে পারেনি।

কেন্দ্রীয় বিএনপির সাবেক ধর্মবিষয়ক সম্পাদক ও নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার থানা বিএনপির সাবেক সভাপতি প্রয়াত বদরুজ্জামান খান খসরুর ছেলে মাহমুদুর রহমান সুমন। তার চাচা আতাউর রহমান আঙ্গুর ছিলেন ওই এলাকার সংসদ সদস্য।

স্থানীয় বিএনপির নেতাকর্মীরা জানান, বদরুজ্জামান খান খসরুর ছেলে হওয়ায় সুমন বিএনপির গুরুত্বপূর্ণ পদ পেয়েছেন বরাবরই। কিন্তু স্থায়ী নেতাকর্মীদের সাথে যোগাযোগ না থাকলেও রয়েছে সরকার দলীয়দের সাথে সক্ষতা। সে সরকারের এজেন্ট হয়ে আড়াইহাজারে বিএনপির নেতাকর্মীদের মধ্যে ফাটল ধরাতে চাইছেন। আমরা কর্মী হয়েও মামলা-হামলার শিকার হচ্ছি। আর সুমনের বিরুদ্ধে একটি মামলাও হচ্ছে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

RSS
Follow by Email